- টুকিটাকিs

হার্ড ইমিউনিটি (Herd Immunity)

কোন অঞ্চলে জনসংখ্যার একটি বৃহদংশ যখন কোন বিশেষ সংক্রামক রোগকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয় – তখন সেই অঞ্চলের জনগন সেই রোগের নিরিখে হার্ড ইমিউনিটি  বা কমিউনিটি ইমিউনিটি প্রাপ্ত হয়েছে বলা হয় । প্রতিরোধে সক্ষম এই ব্যক্তি দের দ্বারা তখন আর সংক্রমণ ছড়ায় না – ফলে সংক্রমণ শৃঙ্খল বা ইনফেকশন চেন ভেঙে গিয়ে সেই রোগ ছড়িয়ে পড়ার তীব্রতা অনেক সীমিত হয়ে যায়। তাই রোগ প্রতিরোধে সক্ষম ব্যক্তিদের অনুপাত যত বেশী হবে, প্রতিরোধে অক্ষম অন্যান্য ব্যক্তিদের সংক্রমিত হবার সম্ভাবনা ততই কমবে। হার্ড ইমিউনিটি দুরকম ভাবে তৈরী হতে পারে – (১) প্রাকৃতিক ভাবে – রোগ থেকে সুস্থ হবার পর শরীরে থেকে যাওয়া অ্যান্টিবডি পুনঃসংক্রমণে বাধা দেয়, এবং (২) ভ্যাকসিনেশনের মাধ্যমে শরীরে কৃত্রিম ভাবে সৃষ্ট অ্যান্টিবডি দ্বারা। ছোঁয়াচে সংক্রমণের তীব্রতার উপর নির্ভর করে একটি অঞ্চলের জনসংখ্যার সাধারণতঃ ৭০% – ৯০% একটি বিশেষ রোগ প্রতিরোধে সক্ষম হলে, সেই কমিউনিটি হার্ড ইমিউনিটি প্রাপ্ত হয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *