- History, Study Materials

Lord Dalhousie & 2nd Anglo-Sikh War : Part-II

সেনাপতি হিউগাফের নেতৃত্বে বিশাল এক ইংরেজ বাহিনী রাভী নদী পার হয়ে পাঞ্জাব আক্রমণ করে। চিলিনওয়ালার যুদ্ধে (১৮৪৯) শিখ সেনা প্রবল বীরত্বের সাথে যুদ্ধ করে ইংরেজদের প্রভূত ক্ষতি করে, কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা ইংরেজের হাতে পরাজিত হয়। এরপর ইংরেজ সেনা মূলতান দুর্গ অবরোধ করলে সেখানেও প্রবল বাধার সম্মুখীন হয়, কিন্তু এখানেও শেষ পর্যন্ত দুর্গ ইংরেজদের হাতে অধিকৃত হয় ও মূলরাজ বন্দী হন। গুজরাটের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে হিউগাফ অবশেষে খালসা সেনাদের চূড়ান্ত ভাবে পরাস্ত করেন। শিখ সেনাদের চূড়ান্ত ধ্বংসের যে প্রতিজ্ঞা হিউগাফ করেছিলেন তারই ফলস্বরূপ তিনি যথেচ্ছ ভাবে এই যুদ্ধে কামানের প্রয়োগ করেন, যাতে খালসা সেনাদের যুদ্ধ বন্দী করার কোন অবকাশ না থেকে যায়! কামানের গোলার মুখে খালসা সেনারা বীরত্বের সাথে যুদ্ধরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। ম্যালসন যথার্থই বলেছিলেন যে কোন সেনাদল শিখ সেনা অপেক্ষা উৎকৃষ্ট যুদ্ধ করেনি, কিন্তু কোন সেনাদল এত খারাপ ভাবে আবার পরিচালিতও হয়নি।
শিখদের এই চূড়ান্ত পরাজয়ের পর লর্ড ডালহৌসি ব্রিটেনের পরিচালক সভার অনুমতির অপেক্ষা না করেই পাঞ্জাব অধিগ্রহণের ঘোষণাপত্র জারী করেন। মহারাজা দলীপ সিং কে পদচ্যুত করে বার্ষিক পঞ্চাশ হাজার পাউন্ড পেনশনের বিনিময়ে ইংল্যান্ডে নির্বাসিত করা হয় ও গোটা পাঞ্জাব কোম্পানির রাজ্যভুক্ত হয়। দলীপ সিং বিখ্যাত কোহিনুর মণি কোম্পানিকে দান করেন।
ডালহৌসির পাঞ্জাব অধিগ্রহণ কতটা ন্যায়নীতিহীন ছিল তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না । মেজর ইভ্যানস্ বেল্ ডালহৌসির পাঞ্জাব অধিগ্রহণকে “sacred breach of trust” বলে ব্যক্ত করেছেন। লাহোরের সন্ধি দ্বারা মহারাজা দলীপ সিং কে অবশিষ্ট পাঞ্জাবের অধিপতি হিসেবে যে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছিল, মূলরাজের বিদ্রোহের, যার জন্য দলীপ সিং মোটেই দায়ী ছিলেন না, সস্তা অজুহাতে ন্যায়নীতিহীন ভাবে সেই স্বীকৃতি অস্বীকার করা হল । ব্রিটিশ ঐতিহাসিক লাডলো এই ঘটনাকে জঘন্য প্রতারণার তকমাও দিয়েছেন।
পাঞ্জাব অধিগ্রহণ কোম্পানির পক্ষে মোটেই হিতকর হয়নি। এর ফলে ভারত ও আফগান সীমান্ত পরস্পর সংলগ্ন হয়ে পড়ে। ফলে পরবর্তীতে ইঙ্গ- আফগান যুদ্ধে লর্ড লিটন কে অহেতুক জড়িয়ে পড়তে হয় ও ইংরেজ প্রভূতঃ ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়। ফলে ডালহৌসির পাঞ্জাব অধিগ্রহণ নীতিকে মোটেই দূরদর্শী চিন্তাধারার প্রতিফলন হিসেবে মান্য করা যায় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *